Skip to content

রাইয়ান নামের এর অর্থ কি? রাইয়ান নামের বাংলা, ইংরেজি, আরবি/ইসলামিক অর্থসমূহ-

পৃথিবীতে সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর তাকে সম্বোধন করে ডাকার জন্য যে পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়, তাই ইসম বা নাম। অন্যভাবেও বলা যায়, কোনো মানুষকে অপরাপর মানুষ থেকে পার্থক্য করার জন্য যে বিশেষ শব্দের মাধ্যমে ডাকা হয়, তাই-ই নাম। আর এই নাম রাখার ব্যাপারে ইসলামে অত্যধিক গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। প্রতিটি মানুষের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িয়ে রয়েছে তার নাম, উপনাম কিংবা উপাধি। সুন্দর ও অর্থবহ নাম রাখার ব্যাপারে রাসূল(সা.) গুরুত্বারোপ করেছেন। সুন্দর নাম রাখার তাগিদ দিয়ে রাসূল(সা.) ইরশাদ করেছেন, কিয়ামতের দিন তোমাদের নিজ নাম ও পিতার নামে ডাকা হবে। সুতরাং তোমরা সুন্দর নাম রাখো।- (আবু দাউদ)

রাইয়ান নামটি সুন্দর ও অর্থবোধক একটা নাম। রাইয়ান নামের মতো রাইয়ান নামের অর্থটাও খুব সুন্দর। আপনি চাইলে আপনার ছেলে সন্তানের নাম রাইয়ান রাখতে পারেন। রাইয়ান এটি একটি আরবি নাম। এই নামে 6 টি ইংরেজি অক্ষর রয়েছে।

রাইয়ান নামের অর্থ বাংলায়-

রাইয়ান নামের বাংলা অর্থ হলো -( ধরনের ;করুণাময় )

রাইয়ান নামের অর্থ ইংরেজিতে-

রাইয়ান নামের ইংরেজি অর্থ হলো -( kind; merciful )

রাইয়ান নামের বানান ইংরেজিতে- Raiyan

রাইয়ান নামের বানান আরবিতে – رايان

নাম হলো একজন মানুষের পরিচয়ের অন্যতম মাধ্যম। সেজন্য সুন্দর ও অর্থবোধক নাম রাখা প্রত্যেক পিতা-মাতা কিংবা অভিভাবকগণের ওপর গুরুতর দায়িত্ব এবং কর্তব্য। তাই আসুন, সন্তানের জন্য অর্থহীন কিংবা বিজাতীয় সংস্কৃতির অনুসরণ না করে সুন্দর ও অর্থবহ নাম রাখি। আশা করি রাইয়ান নামের বাংলা, আরবি/ ইসলামিক এবং ইংরেজি নামের অর্থ জানতে পেরেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *